বুধবার, ৯ জুন, ২০২১

নেই রাজ্যের বাসিন্দা,বাড়ি বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে হাপুরের দলিতরা

 



পুবের কলম ওয়েবডেস্কঃ দলিত মহল্লা। উন্নয়নের ছিটেফোটা পৌঁছায়নি। নেই ন্যূনতম নাগরিক পরিষেবাটুকুও। যোগী রাজ্যে দলিতদের প্রতি বারবার বৈষম্যমূলক আচরণের অভিযোগ উঠেছে। উত্তরপ্রদেশের হাপুরে দলিত কলোনি তারই জীবন্ত প্রমাণ। সেখানে না আছে বিশুদ্ধ পানীয় জলের ব্যবস্থা না আছে শৌচাগার। আর রাস্তাঘাট তো অনেক দূরের ব্যাপার। দিনের পর দিন অনুন্নয়ন আর বঞ্চনা সহ্য করতে করতে এবার এলাকা ছেড়ে অন্যত্র চলে যতে চাইছে দলিত পরিবারগুলি। বলা ভাল তারা এলাকা ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য হচ্ছে। ‘এই ঘর বিক্রয় হবে পোস্টারে ছেয়ে গিয়েছে হাপুরের এই দলিত মহল্লায়। এই হাপুরেই রয়েছে আদর্শনগর কলোনি। 

এখানকার প্রায় সব বাসিন্দাই দলিত। তাদের অভিযোগ বেঁচে থাকার মতো ন্যূনতম সুযোগ-সুবিধাটুকু এখানে পাওয়া যায় না। না আছে রাস্তাঘাট না আছে পানীয় জল না আছে শৌচাগার। নেই শিক্ষার কোনও ব্যবস্থাও। তাদের আরও অভিযোগ তারা নিয়মমতেকা হাউজ ট্যাক্স (গৃহ-কর) দিয়ে থাকে। তা সত্ত্বেও ন্যূনতম পরিষেবা মেলে না।

 তবে শুধু বাড়ি নয় মহল্লায় থাকা দোকানগুলি বিক্রি করে দিতে চান তার মালিকরা। এমনই একজন ধর্মেন্দ্র দাবগর। জানালেন মহল্লায় তাঁর একটি মোবাইল ফোনের দোকান রয়েছে। তিনি সেটি বিক্রি করে দিয়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। জানালেন এলাকায় কোনও স্কুল-কলেজ নেই। সন্তানদের ভবিষ্যৎ কী হবে? নেই কোনও স্বাস্থ্যকেন্দ্র। 

এমনকি পানীয়জল পর্যন্ত পাওয়া যায় না। শৌচাগার নেই। অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ। এভাবে বেঁচে থাকা যায়? আর এক বাসিন্দা জয়পাল ধামুকের অভিযোগ দলিত বলেই তাঁদের এই মহল্লায় কোনও উন্নয়ন করা হয় না। কেউ এদিকে ফিরেও তাকায় না। এখানে থাকা-খাওয়ার প্রচন্ড সমস্যা। জলকষ্ট তো রয়েইছে। রাস্তা খানাখন্দে ভর্তি। আবর্জনার পাহাড় জমছে। সাফাই হয় না। বর্ষার সময় পরিস্থিতি অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর হয়ে ওঠে। এখানে থাকার মতো পরিস্থিতি নেই। তাই তাঁরা ঘরবাড়ি বিক্রি করে দিতে বাধ্য হচ্ছেন। এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনও মুখে কুলুপ এঁটেছে।  


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only