বুধবার, ৯ জুন, ২০২১

কৃষক আন্দোলনে পাশে থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন রাকেশ টিকায়েত সহ আন্দোলনকারী কৃষক নেতারা নবান্নে বললেন মুখ্যমন্ত্রী

 



পুবের কলম  ওয়েবডেস্কঃ আন্দোলনকারী কৃষক নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দেন ‘অতীতের মতো ভবিষ্যতেও কৃষক আন্দোলনের পাশে থাকবেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন ‘আমরা বিধানসভায় কৃষি বিলের বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাস করেছি। প্রথমদিন থেকে কৃষক আন্দোলনের পাশে আছি। আমাদের অনেক সাংসদ সমর্থন জানাতে সেখানে গিয়েছিলেন। ওদের আন্দোলনে আমাদের সমর্থন আছে। আমরা সিঙ্গুর আন্দোলন করেছিলাম কৃষকদের স্বার্থেই। জোর করে কৃষকদের জমি নেওয়ার বিরোধী আমি। এ রাজ্যে এ জন্য আইনও তৈরি করেছি। কৃষক আন্দোলন শুধু পঞ্জাব-হরিয়ানার বিষয় নয় এটা গোটা দেশের বিষয়। সব রাজ্যকে একত্রিত করে আন্দোলন করতে হবে। আমি মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলব। যত দিন দাবি আদায় না হয়  আন্দোলনকে সমর্থন করতে হবে।

বিতর্কিত তিন কৃষি বিল প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন ‘গায়ের জোরে কৃষি আইন পাস  করেছে কেন্দ্র। জানুয়ারি মাসের পর থেকে আন্দোলনকারী কৃষক নেতাদের সঙ্গে কথাই বলেনি। তিনটে বিল প্রত্যাহার করলে কি ক্ষতি হবে? রোজ পেট্রোল-ডিজেলের দাম বাড়ছে। ওরা কারও কথা ভাবে না। কৃষকরা চাষবাস কী করে করবে? কৃষক আন্দোলন আরও জোরদার হওয়া প্রয়োজন।

বিধানসভা ভোটে বিপুল জনাদেশ পেয়ে তৃতীয়বারের মতো বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হলেও তাঁর লক্ষ্য যে ২০২৪ সালের লোকসভা ভোটে নরেন্দ্র মোদিকে প্রধানমন্ত্রীর কুর্সি থেকে হটনো তাও এদিন বুঝিয়ে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মোদি সরকারের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়ে তিনি বলেন ‘গত সাত বছরে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার শুধু দেশে বিপর্যয় ডেকে এনেছে। ক্ষমতায় আসার পর থেকে শুধু সর্বনাশা কালো আইন আনা ছাড়া কোনও কাজ করেনি। সাত বছরে বিজেপি যে রাজত্ব চালাচ্ছে তা শুধু বেরোজগারি বাড়ানোর জন্য। এমন সব আইন পাস করিয়েছে যাতে আজ কৃষিশিল্প সব সমস্যায়। দেশের অর্থনীতির আজ ডিজাস্টার হয়ে গেছে। অফিসারদেরকেও ভয় দেখাচ্ছে। ওদের লেখার ও কিছু বলার অধিকারও কেড়ে নেওয়া হয়েছে। নোটবন্দির মতো বোলি বন্ধ করা হয়েছে। বিরোধীদের কণ্ঠরোধ করতে চাই বিজেপি। কিন্তু আমাদের আটকাতে পারবে না।

মোদি সরকারের বিরুদ্ধে সবাইকে জোট বাঁধারও আর্জি জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায় ‘বিজেপির বহু পুরনো নেতা রয়েছেন যাঁরা পুরনো ঘরানার মানুষ। আর যে যুবকরা মোদিকে দেখে চলে গিয়েছিলেন তাঁদের সবাইকে বলছি ফিরে আসুন। একজোট হয়ে দেশকে বাঁচাতে কৃষকদের বাঁচাতে যুবকদের বাঁচাতে শ্রমিকদের বাঁচাতে হবে। মোদি-বিরোধী জোটকে নেতৃত্ব দেবেন কি না এ দিন সেই প্রশ্নের জবাবে তৃণমূল সুপ্রিমো তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বলেন ‘আমার লক্ষ্য একটাই মোদিকে ক্ষমতা থেকে হটানো 

দেশে কোভিড পরিস্থিতির প্রসঙ্গে মোদিকে নিশানা করে মমতা বলেন ‘প্রধানমন্ত্রী ভাষণ ছাড়া আর কিছুই দেন না। এখন বলছে রাজ্যকে ভ্যাকসিন কিনে দেবে। কেন্দ্র কেন ছমাস আগে এটা করেনি?  ফ্রি ভ্যাকসিন তো বিজেপি নিজের পকেট থেকে দিচ্ছে না। দেশের জনগণের টাকা থেকে দিচ্ছে। করোনা মোকাবিলার জন্য বরাদ্দ ৩৫ হাজার কোটি টাকা কোথায় গেল? পিএম কেয়ারস ফান্ডে কত টাকা আছে? কোভিড ভ্যাকসিনের উপর জিএসটি লাগু করছে। এটা তো মানুষ মারার চক্রান্ত।

মমতার সঙ্গে বৈঠকের পর কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত সাংবাদিকদের বলেন ‘দেশের মানুষের কাছে অনুরোধ করছি বিজেপিকে ভোট দেবেন না। বিজেপি দেশের ক্ষতি হয়েছে। মমতা দিদি বাংলাকে বাঁচিয়ে নিয়েছেন। এবার দেশ বাঁচানোর পালা। বিজেপি থাকলে দেশ থাকবে না। বিজেপি না থাকলে দেশ বাঁচবে। আগামী দিনে বিভিন্ন রাজ্যেও বিজেপির ‘সর্বনাশা নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন চলবে বলে জানান তিনি।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only