সোমবার, ৭ জুন, ২০২১

লাক্ষাদ্বীপে বিতর্কিত আইন চালু হবে না, প্রতিশ্রুতি অমিত শাহের



পুবের কলম, ওয়েবডেস্ক:  কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছেন, কোনও আইন স্থানীয় মানুষের ইচ্ছার বিরুদ্ধে লাক্ষাদ্বীপে বলবৎ করা হবে না। লাক্ষাদ্বীপের সুন্নি নেতা কানতাপুরম এ পি আবুবাকার মুসালিয়ার একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই দাবি করেছেন। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আবুবাকারকে ফোন করে উক্ত মন্তব্য করেছেন অমিত শাহ। ফোনে তাঁকে এই নিশ্চয়তা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। আবুবাকার জানিয়েছেন,  তিনি অমিত শাহকে একটি চিঠি লিখে আইনে প্রস্তাবিত সংশোধনের বিরুদ্ধে তাঁর মতামত জানিয়েছিলেন,  তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে চিঠিতে এ দাবিও জানিয়েছিলেন,  কেন্দ্রশাসিত লাক্ষাদ্বীপের প্রশাসক প্রফুল খোদা প্যাটেলকে অবিলম্বে তাঁর পদ থেকে অপসারিত করা হোক। তিনি লাক্ষাদ্বীপের বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে হস্তক্ষেপের দাবিও জানান। বিজ্ঞপ্তিতে আবুবাকার জানিয়েছেন, অমিত শাহ তাঁকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, চিঠিতে তোলা তাঁর দাবিগুলি গুরুত্বের সঙ্গে পর্যালোচনা করে দেখা হবে। 

অমিত শাহ বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার লাক্ষাদ্বীপের মানুষের পাশে আছেন। সরকার দ্বীপের মানুষদের সংস্কৃতি এবং জীবনশৈলী সংরক্ষণ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। চিন্তার কোনও কারণ নেই। আবুবাকার জানিয়েছেন, তিনি অমিত শাহকে বলেন,  দ্বীপের সাধারণ মানুষ নতুন প্রশাসকের আচরণে খুবই শঙ্কিত। তিনি অমিত শাহকে অনুরোধ করেন,  বিগত ছয় মাসে যেসব নতুন আইন এখানে বলবৎ হয়েছে সেগুলি যেন প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। তিনি শাহকে জানান,  বিতর্কিত আইনগুলি প্রত্যাহার করে নেওয়া হলে মানুষের আশঙ্কা এমনি দূর হয়ে যাবে।

প্রসঙ্গত,  দেশের ৯৩ জন অবসরপ্রাপ্ত প্রথম শ্রেণির আমলা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখে লাক্ষাদ্বীপের প্রশাসক প্রফুল প্যাটেলের একাধিক বিতর্কিত সিদ্ধান্ত সম্পর্কে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তাঁরা চিঠিতে জানিয়েছেন,  তাঁরা কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে জড়িত নন, তাঁরা ভারতের সংবিধানের প্রতি আস্থাবান। একাধিক খামখেয়ালি নীতি প্রণয়ন করে লাক্ষাদ্বীপের সাংস্কৃতিক চরিত্র বদলের চেষ্টা চলছে। ৯৭ শতাংশ যোনে মুসলিম জনসংখ্যা সেখানে তাদের রুচি এবং খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করার চেষ্টা হচ্ছে। যে দ্বীপে অপরাধের ঘটনা প্রায় নেই সেখানে গুন্ডা আইনের মতো নিষ্ঠুর আইন চালু করা হচ্ছে। সেখানকার প্রশাসক প্রফুল প্যাটেল যে খামখেয়ালি সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন তার বিরোধিতা করা হয়েছে কেরল বিধানসভায় প্রস্তাব পাস করে। লাক্ষাদ্বীপের সাংসদ মুহাম্মদ ফয়জলও প্রশাসকের সিদ্ধান্তে আপত্তি জানিয়েছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only