শনিবার, ৫ জুন, ২০২১

তৃতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর আজ তৃণমূলের প্রথম সাংগঠনিক বৈঠক





পুবের কলম ওয়েবডেস্কঃ  বিজেপিকে কার্যত ধুয়েমুছে  সাফ করে ১০০ এর নীচে আটকে  তৃতীয়বারের জন্য  জনাদেশ নিয়ে ক্ষমতায় এসেছে  তৃণমূল।  তারপর আজ শনিবার ৫ জুন দলের  প্রথম  সাংগঠনিক  বৈঠক। বেলা দুটোয় তৃণমূল ভবনে এই সাংগঠনিক বৈঠকে নেতৃত্ব  দেবেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 


বৈঠকে জেলা সভাপতিদের পাশাপাশি তলব করা হয়েছে সাংসদ, মন্ত্রী, বিধায়ক ও পুরসভার চেয়ারম্যান তথা পুর প্রশাসকদের। এদিন বৈঠকে থাকতে পারেন ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরও। ২০২৪ এর লোকসভা  নির্বাচনের ঘুঁটি এখন থেকেই  সাজাতে চান দলনেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 


দল পরিচালনার ক্ষেত্রে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গুরুত্ব বাড়তে পারে। তার কারণ একুশের নির্বাচনে তৃণমূলের ঐতিহাসিক জয়ের নেপথ্যে অভিষেক অন্যতম কাণ্ডারী বলে মনে করে পর্যবেক্ষক মহলের একাংশ। তাই ২০২৪-এর ভোটযুদ্ধের আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে বড় দায়িত্ব দিতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷



দলীয় সংগঠন কে মজবুত  করতে "একপদ, একনেতা " চালু করতে  পারেন  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  উত্তরবঙ্গের ফলাফল  নিয়ে নেত্রী  মোটেও সন্তুষ্ট  নন, দক্ষিণবঙ্গের কিছু জেলার  ফলাফল  নিয়েও জবাব চাইতে পারেন। 


জেলা সভাপতিসহ বেশ কিছু পদে অদল বদল হতে পারে। এখনও পর্যন্ত ৫টি জেলার নাম এই তালিকায় রয়েছে। সেগুলো হল, উত্তর ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, বর্ধমান পূর্ব, দার্জিলিং এবং কোচবিহার। এছাড়া, যে সব জেলা সভাপতি এবার মন্ত্রী হয়েছেন, তাঁদের জেলা সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে নতুন মুখদের জায়গা দেওয়া হতে পারে। 


দলবদলুদের বিষয়ে নেওয়া হতে পারে  সিদ্ধান্ত।   সোনালী গুহ, দীপেন্দু বিশ্বাস, বাচ্চু হাঁসদারা ফিরতে  চাইছেন। অন্যদিকে  খুব  সম্প্রতি  মুকুল রায়ের স্ত্রী  কে হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কথা হয় মুকুল  পুত্র  শুভ্রাংশুর সঙ্গে।  সেখানেও  জন্ম  নিয়েছে  এক রাজনৈতিক জল্পনা। 
সব মিলিয়ে বেলা  দুটোয় তৃণমূলের সাংগঠনিক  বৈঠক  থেকে কি নির্যাস বেরোয়  এখন সেটাই  দেখার।





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only