শুক্রবার, ৪ জুন, ২০২১

মানুষের কৃতকর্মের জন্যই জলে-স্থলে বিপর্যয় সৃষ্টি হয়েছে

 



মানুষের কৃতকর্মের জন্য পৃথিবীতে দেখা দিচ্ছে মানবসৃষ্ট নানা ধরনের বিপর্যয় মহামারি হচ্ছে পরিবেশ দূষণ পবিত্র কুরআন- বলা হয়েছেমানুষের কৃতকর্মের কারণেই স্থলে সমুদ্রে বিপর্যয় ছড়িয়ে পড়ছে যার ফলে আল্লাহ মানুষকে কোনও কোনও কর্মের শাস্তি আস্বাদন করান যাতে তারা ফিরে আসে (সুরা রুমআয়াত ৩০ঃ কুরআন)শুধু বিজ্ঞানী বা দার্শনিকরা ননপরিবেশ রক্ষা করার আহ্বান জানিয়ে পবিত্র কুরআন হাদিসে বহু উল্লেখ রয়েছে

মানুষের লোভ লালসা সংকীর্ণ দৃষ্টিভঙ্গির দরুনই সভ্যতা জীব জগতের উপর নেমে আসা বিপর্যয়গুলির প্রধান কারণ এই বিপর্যয় থেকে বাঁচার সম্ভাব্য প্রতিকারে কী করা উচিত তা নিয়ে লিখছেন মাহফুজা তারান্নুম

 

পৃথিবীর বুকে যুগে যুগে কত সভ্যতা এসেছেকত সভ্যতা বিলীন হয়েছে আমাদের সময়কালও শেষ হবেআমরাও অতীত হবো কারণসভ্যতার আস্ফালন যতই তীব্র হোক না কেনআল্লাহর সৃষ্টি প্রকৃতির অনন্ত শক্তির কাছে তা অতি তুচ্ছ ইতিহাস বলে অতীতের প্রায় সকল সভ্যতার বিলুপ্ত হওয়ার জন্য প্রাকৃতিক বিপর্যয়ই দায়ী

তত্ত্বগতভাবে বিশ্বাস করা হয় যেমানুষের আবির্ভাবের আগে পৃথিবীর বুকে নাকি বিচরণ করে বেড়াত ডাইনোসরম্যামথ সাইবেরিয়ার বাঘের মতো জীবজন্তুরাপৃথিবী থেকে তাদের বিলুপ্ত হয়ে যাওয়ার পিছনেও বিভিন্ন ধরনের প্রাকৃতিক বিপর্যয় তথা জলবায়ুর পরিবর্তনবসতি স্থাপনের অনুকূল পরিবেশের অভাবএমনকি উল্কাপাতেরও হাত রয়েছে! সিন্ধু সভ্যতার রহস্যময় অবলুপ্তির জন্যও ঐতিহাসিকরা বিভিন্ন রকম বিপর্যয়কেই দায়ী করে থাকেনযেমন নদীর গতিপথ পরিবর্তনখরা অথবা মহামারি

পাশাপাশি যদি ধর্মীয় বিশ্বাসের দিকে তাকানো হয়তবে দেখা যায় কুরআনে বর্ণিত নূহ . কিংবা বাইবেলে বর্ণিত নোয়ার নৌকা তৈরি করা হয়েছিল বন্যা অর্থাৎ এক প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে জীব প্রজাতিকে রক্ষা করার জন্যই বলা যায়মানুষ বিপর্যয়ের সম্মুখীন হয়েছেএবং তা থেকে বেঁচেও ফিরেছে মানুষের অস্তিত্বের অলৌকিকত্ব এখানেই যেপরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ারকঠিন সমস্যা মোকাবিলা করার অন্যন্য ক্ষমতা তার রয়েছে

সুতরাংবিপর্যয় মানবজাতির কাছে কোনও অপরিচিত বিষয় নয় খরাবন্যাদুর্ভিক্ষভূমিকম্পসুনামি সর্বোপরি করোনা মহামারির সঙ্গে গত একবছর যাবত পৃথিবীর লড়াইপাশাপাশি ফ্যাঙ্গাসপঙ্গপালের হানাঘূর্ণিঝড় সব *পেই বিপর্যয়কে মানুষ চাক্ষুষ করেছে এই সকল প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের পিছনে প্রত্যক্ষ হোক কিংবা পরোক্ষসর্বক্ষেত্রেই জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব বিদ্যমান আর জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য মানুষই দায়ী বিপর্যয় মূলত মানবসৃষ্ট প্রাকৃতিক কারণে হয়ে থাকে তাইমানুষের খামখেয়ালির দরুন সভ্যতার উপর প্রকৃতির খেয়ালে ঘটে যাওয়া এই সকল বিপর্যয় এবং এই বিপর্যয় থেকে বাঁচার সম্ভাব্য প্রতিকারের খোঁজেই আজকের এই ক্ষুদ্র উপস্থাপনা


প্রাকৃতিক বিপর্যয় বলতে প্রকৃতির সেই ভয়াবহতাকে বোঝানো হয় যার প্রলয়ংকারী গ্রাসে তলিয়ে গিয়ে মানব সভ্যতা তথা জীবজগতের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা সাময়িক অথবা দীর্ঘ সময়ের জন্য স্তব্ধ হয়ে যায় তবে আন্তর্জাতিকভাবে প্রচলিত সংজ্ঞা অনুসারেসম্পদহানি কিংবা জীবনহানি না ঘটলে কোনও প্রাকৃতিক গঠনমূলক প্রক্রিয়াকে বিপর্যয় হিসেবে চিহ্নিত করা যায় না এটি ভিন্ন ভিন্ন *পে প্রকট হয়

কিন্তু যেহেতু প্রকৃতির খেয়াল বোঝা অত্যন্ত কঠিনতাই এই খেয়ালের প্রকার-ধরন নির্ধারণ করাও খানিক দূরহ প্রাচীন বৈদিক ধারণা অনুসারে এই পৃথিবী মোট পাঁচটি মৌলিক উপাদান বা পঞ্চভূত দ্বারা গঠিত এই উপাদান গুলি হল ক্ষিতি বা ভূমিঅপ বা জলতেজ অর্থাৎ অগ্নিমরুৎ বা বায়ু এবং ব্যোম অর্থাৎ আকাশ পৃথিবীর গঠনগত এইসব উপাদান পরস্পর পরস্পরের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে সম্পর্কযুক্ত এবং এগুলিই সকল বিপর্যয়ের মূল উৎস আর এই উৎসগুলির উপর ভিত্তি করেই ভারতের প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কয়েকটি প্রকার চিহ্নিত করা যেতে পারে

ভারতীয় উপমহাদেশ বিশ্বের সবচেয়ে বিপর্যয়-প্রবণ অঞ্চলগুলির একটি এখানে প্রতিবছর প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সাধারণ কারণ বিধ্বংসী ঝড় এই ঝড়ের মূলগত উৎস হল সৃষ্টির অন্যতম মৌলিক উপাদান মরুৎ বা বায়ু প্রাকৃতিক বিপর্যয় *পে এই ঝড় বিভিন্ন রকমের হতে পারে স্থানগত বৈশিষ্ট্য অনুসারে বিজ্ঞানীরা কোথাও এই ঝড়কে টর্নেডোহারিকেনকোথাওবা টাইফুনআবার কোথাও সাইক্লোন নামে অভিহিত করেছেন বঙ্গোপসাগরে উপকূলবর্তী অঞ্চলে এই ধরনের ঝড়কে সাইক্লোন বলা হয় প্রতিবছর চলতে থাকা এরূপ ঝড়ের প্রকোপে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি জীবনহানি হয় পশ্চিমবঙ্গে আমাদের মতন সমুদ্র উপকূলবর্তী ভূখণ্ডের মানুষেরা ঝড়ের প্রকোপের সঙ্গে সুপরিচিত প্রতিবছরই এখানে ঘূর্ণিঝড় দেখা যায় গতবছরের আমফান সুপার সাইক্লোনের ক্ষয় মেরামত হতে না হতে এবছরের ইয়াসের দাপটে বাংলা বিধ্বস্ত ক্ষয়ক্ষতির সম্পূর্ণ হিসাব এখনও সরকারি ভাবে প্রকাশ করা হয়নি

ভারতে ভূমিকম্পও বিপর্যয়ের অন্যতম কারণ ২০১৭ সালের ভূকম্প মানচিত্র অনুযায়ী দেশে |ষাট শতাংশ  এলাকাতেই মাঝারি থেকে তীব্র ভূমিকম্পের আশঙ্কা বর্তমান আবার ৩২৯ মিলিয়ন হেক্টরের মোট ভৌগলিক অঞ্চলের ৪০ মিলিয়ন হেক্টরেরও বেশি এলাকা বন্যাপ্রবণ গড়ে প্রতি বছর ৭৫ লক্ষ হেক্টর জমি বন্যার কবলে পড়ে৬০০-এর মতো জীবনহানি ঘটে এবং বন্যার জন্য শস্যঘরবাড়ি জনসাধারণের সম্পত্তির মোট ক্ষয়ক্ষতির গড় পরিমাণ দাঁড়ায় কোটি কোটি টাকা

পৃথিবীতে সাদা-কালোভালো-মন্দ ইত্যাদি পরস্পরবিরোধী সত্তা সমান্তরালভাবে বর্তমান তেমনি পৃথিবীতে বর্তমান প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের তালিকাতেও একদিকে যেমন অতিবৃষ্টির ফলে বন্যার নিদর্শন রয়েছেঅন্যদিকে আবার অনাবৃষ্টির কারণে ঘটা খরারও উদাহরণ রয়েছে ফলে ভারত একদিকে যেমন বন্যায় ভেসে যায়আবার অপরদিকে অন্য কোনও প্রান্ত খরার প্রকোপে প্রখর সূর্যতাপে জ্বলতে থাকে

খরা অসংখ্য মানুষের জন্য বিশেষ করে গ্রামীণ এলাকায় অভিশাপ বয়ে নিয়ে আসে খরা আসলে দীর্ঘকালীন অনাবৃষ্টির ফলে পৃথিবীর বুকে নেমে আসা বিপর্যয় বিপর্যয়ের প্রকোপ বিশেষভাবে অনুভব করতে পারেন কৃষকেরা মাটি এসময় ফেটে চৌচির হয়ে যায়ফসল শুকিয়ে যায়উদ্ভিদসহ সমস্ত প্রাণীকুল একটুখানি জল পাওয়ার তৃষ্ণায় ধুঁকতে থাকে গবাদি পশুর করুণ মৃতু্য হয় প্রসঙ্গতভারতে গতবছর খরা সরকারি ভরতুকির অভাবে বহু কৃষক আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছিলেন এমনকিএবছর কেন্দ্র সরকারের কৃষকবিরোধী আইনের বিরুদ্ধে তাঁদের লাগাতার আন্দোলন এখনও জারি রয়েছে

কিন্তু কেন খরা? এর পিছনে রয়েছে মানুষের হাত যেভাবে বন ধ্বংস এবং শহরাঞ্চলেও গাছপালা সবুজকে বিনাশ করা হচ্ছে তার প্রভাব পড়তে প্রকৃতিতে পরিবেশের উপর মানুষের বিপর্যয়করী হাত মূলত জন্য দায়ী কলকারখানা শিল্পাঞ্চল থেকে উদ্ভ( বায়ু মাটি দূষণ গ্লোবাল ওয়ার্মিং এবং পরিবেশ দূষণের ক্ষেত্রে মারাত্মক ভূমিকা পালন করছে ক্ষতি করছে পৃথিবীর মানব জাতির এক কথায় বলা যায়ক্ষতি করছে উদ্ভিদসহ সমগ্র জীব জগতের

এসব প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের পাশাপাশি ভারতসহ সারা বিশ্বে মানুষের দ্বারা সৃষ্ট রাসায়নিক জীবানু ঘটিত বিপর্যয় ক্রমশ চরম আকার ধারণ করছে মানবসৃষ্ট বিপর্যয় তখনই সামনে আসে যখন সেই প্রক্রিয়ায় সম্পদ জীবনহানি হয় আমাদের দেশে রাসায়নিক প্রক্রিয়াকরণের সঙ্গে যুক্ত শিল্প কারখানাগুলি আধুনিক নয় পরিবেশ দূষণ রুখতেও এগুলি সম্পূর্ণ ব্যর্থ পরন্তুআধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধতে উপযুক্ত উদ্যোগের অভাবমুনাফাখুরির অদম্য লালসা ফলে দিন দিন রাসায়নিক শিল্পক্ষেত্রের অবনতি তীব্র হচ্ছে ক্ষতিকর দূষণেই ছেয়ে যাচ্ছে পৃথিবী যদি সরকারি উদ্যোগে আধুনিক প্রযুক্তির সহায়তায় রাসায়নিক শিল্পায়নকে সচল করা না হয়তবে ক্রমশ অবহেলায়  যেকোনও সময়  ঘটতে পারে অগ্নিসংযোগবিস্ফোরণনির্গত হতে পারে বিষাক্ত গ্যাস ভোপালের কথা আমরা ভুলিনি ভুলিনি রাশিয়ার চেরেনবিলের কথাও এমন চলতে থাকলে দ্বিতীয় ভোপাল গ্যাস ট্রাজেডি সংগঠিত হতে খুব দেরি হবে না সাম্প্রতিক বিশাখাপত্তনমে গ্যাক লিক হওয়ার বিপর্যয় আসলে ভারতে রাসায়নিক শিল্পায়নের দুরাবস্থার প্রকটর* মানুষের দ্বারা সৃষ্ট এইসব বিপর্যয় প্রকৃতির উপর বিরু প্রভাব বিস্তার করে বায়ুজমিন এবং পানি বর্ধমানহারে দূষিত হচ্ছে খুব সম্প্রতি আমরা পঙ্গপাল হানার শিকারও হয়েছিলাম এবং সবচেয়ে উল্লেখযোগ্যজীবানু বিপর্যয়ের ফলে ঘটিত করোনা মহামারিযার সঙ্গে একবছর যাবত সারা দুনিয়া লড়াই করছে এই জীবানু ঘটিত বিপর্যয়ও মানুষের সৃষ্টি বলা হচ্ছেকরোনা মানুষের কোনও ল্যাবরেটরিতে সৃষ্ট উহানে মহামারির আক্রমণের জন্য চিনকে দায়ী করা হচ্ছে তাই প্রাকৃতিক দূর্বিপাক তথা জীবাণু ঘটিত যুদ্ধ পরিস্থিতি ডেকে আনে প্রাকৃতিক দূর্বিপাক হল তীব্র চরমভাবাপন্ন আবহাওয়া জলবায়ুঘটিত ঘটনাক্রম বিশ্বের সমস্ত অংশেই স্বাভাবিক নিয়মে প্রাকৃতিক দূর্বিপাক সংঘটিত হয় সাধারণত কোনও ধরনের মারণ জীবাণুবেশিরভাগ ক্ষেত্রে ব্যাকটেরিয়াছত্রাকভাইরাসযখন এমন কোনও জনসংখ্যার সংস্পর্শে আসেযা তার কার্যকলাপের প্রভাবে বিপন্ন হয়ে পড়েতখনই জীবানুঘটিত বিপর্যয় দেখা দেয় এই বিপর্যয় ক্রমে  মহামারির রূপ ধারণ করে মুহূর্তে ভারত ভাইরাসঘটিত জীবানু বিপর্যয়ের ফলস্বর করোনা মহামারিতে আক্রান্তের নিরিখে বিশ্বের দ্বিতীয়আবার ছত্রাক ঘটিত জীবানু ফ্যাঙ্গাস বিপর্যয়ও ভারতে ক্রমশ মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে পৃথিবীতে পরমাণু বোমার বিস্ফোরণও পরিবেশের ব্যাপক ক্ষতি করছে মানুষকে এক ক্ষতিকর পরিনতির দিকে ঠেলে দিচ্ছে

এইসব বিপর্যয়ের সম্পূর্ণ প্রতিকারের কোনও উপায় এখনও অবধি সঠিকভাবে নিরুপিত হয়নি কেবলমাত্র অগ্রিম সচেতনা বার্তার মাধ্যমে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ফলে ঘটে যাওয়া ধ্বংসের প্রকোপ কিছুটা এড়ানো সম্ভব হয়েছে মানুষের স্বনিধনমূলক কাজকর্মের উপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করে কিছু কিছু প্রাকৃতিক বিপর্যয়কে হয়তো আটকানো সম্ভব এই প্রসঙ্গে বিশ্বব্যাপী বেড়ে চলা অনাবৃষ্টির প্রবণতার কথা উল্লেখ করা হয়েছে পৃথিবীতে জলাভূমি বোজানো এবং বৃক্ষছেদন যত বাড়ছেততই বাড়ছে অনাবৃষ্টির প্রবণতা আবার অন্যদিকে বাঁধ দিয়ে নদীর স্বাভাবিক গতিতে কৃত্রিমভাবে নিয়ন্ত্রণ করায় বন্যার প্রবণতাও ব্যাপকভাবে বাড়ছে তাই পরিবেশের কথা মাথায় রেখে মানুষকে তার সভ্যতার তথাকথিত উন্নয়নমূলক কাজকর্মে অবিলম্বে লাগাম টানা জীবানুনাশক আবিষ্কারে তৎপরতা দেখাতে হবে

প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিকারের উদ্দেশ্যে এবং এই সকল দুর্যোগ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য পৃথিবীর জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক স্তরে বিভিন্ন উদ্যোগ গৃহীত হয়েছে কিংবা গ্রহণ করার কথা বলা হয়েছে সুধীজনেরা উপলব্ধি করতে পেরেছেনপরিবেশ রক্ষা পেলে তবেই মানুষ বিভিন্ন দুর্যোগের হাত থেকে রক্ষা পাবে সে কারণে বিশ্বজুড়ে পরিবেশ সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে চলছে ব্যাপক প্রচারও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ব্যক্তিত্ব এই প্রচারে প্রতিনিয়ত এগিয়ে আসছেন

প্রাকৃতিক বিপর্যয় ক্ষয়ক্ষতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ২০১৫ সালের ১৮ মার্চ রাষ্টসংঘের উদ্যোগে ১৮৮টি সদস্য দেশ নিয়ে পনেরো বছরের পরিকল্পনা গ্রহণ করতে একটি চুক্তির আয়োজন করা হয় সেনডাই শহরে অনুষ্ঠিত বিপর্যয় ঝুঁকি হ্রাস সংক্রান্ত এই  তৃতীয় বিশ্ব সম্মেলনে আমাদের দেশ ভারতও সামিল ছিল পরিকল্পনার নাম ছিলসেনডাই ফ্রেমওয়ার্ক চুক্তির অংশ হিসেবে ২০১৬ সালের নভেম্বরে ভারত বিপর্যয়  সংক্রান্ত মন্ত্রী স্তরের এশিয়া সম্মেলনের আয়োজন করে দিল্লিতে অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে বিপর্যয় মোকাবিলা করতে ভারত দশদফা কর্মসূচির ঘোষণা দেয় এই কর্মসূচিগুলিবিপর্যয় ব্যবস্থাপনারপরিবর্তেবিপর্যয় ঝুঁকি ব্যবস্থাপনায়বেশি জোর দেয় এমনকি বিপর্যয় ব্যবস্থাপনার সামর্থ্যরে বিকাশ ঘটাতে  ২০১৬ সালে একটি সংস্থাও গঠন করা হয় কিন্তু দুঃখের বিষয় এইসকল প্রকল্পের সুফল সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছনোর পথিমধ্যেই ভাগবাটোয়ারা হয়ে যায় রাজ্যকে সহায়তার জন্য কেন্দ্রের অসম বন্টন এবং ক্ষমতাসীনদের দূর্নীতিসহ নানা রাজনৈতিক কারণে আজও বিপর্যয় মোকাবিলা করতে সাধারণ মানুষকেই নিজের মতো করে নিজেদের রক্ষায় আপ্রাণ চেষ্টায় সামিল হতে হয়

পরিশেষেপরিবেশ দূষণ রোধব্যাধি-সমস্যা দূরীকরণে চাই জোটবদ্ধ প্রচেষ্টা কারণ বিপর্যয় মোকাবিলা কোনও এককালীন উদ্যোগ নয়এটি একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া সুস্থায়ী বিকাশের জন্য দরকার দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা এবং পরিকল্পনার সুফল পেতে প্রয়োজন পরিকল্পনাপ্রকল্প প্রশিক্ষণের লাগাতার পর্যালোচনা ভবিষ্যতের জন্য প্রকল্পের ফল প্রভাবের মূল্যায়নকে নথিবদ্ধ করা যদি এভাবে সুপরিকল্পিত ভাবে বিপর্যয় মোকাবিলা করা সম্ভব হয়তবেই হয়তো আমরা একদিন বেঁচে ফিরে বলতে পারব--- ‘মন্বন্তরে মরিনি আমরা মারী নিয়ে ঘর করি/ বাঁচিয়া গিয়াছি বিধির আশিষে অমৃতের টীকা পরি

 

লেখিকা গবেষককুরআন রিসার্চ ফাউন্ডেশন

 

 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only